এসএ টিভিতে আসছে ট্রাভেল শো `ট্রাভেল উইথ ফুড’

0
29

প্রেস বিজ্ঞপ্তি : দেশের অন্যতম জনপ্রিয় স্যাটেলাইট চ্যানেল এসএ টিভিতে প্রচার হতে যাচ্ছে ভ্রমন পিপাসু মানুষদের জন্য ব্যতিক্রমী এক আয়োজন বিশেষ ট্রাভেল শো ‘ট্রাভেল উইথ ফুড’। সম্প্রতি অনুষ্ঠানটির প্রোমো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারের পর থেকেই এ বিষয়টি বেশ আলোচনায় আসে। এবার বাংলাদেশের জনপ্রিয় স্যাটেলাইট চ্যানেল এসএটিভি কর্তৃপক্ষের সাথে অনুষ্ঠানটি সম্প্রচারের বিষয়ে আনুষ্ঠানিক চুক্তিপত্র সম্পন্ন করেছে ‘ট্রাভেল উইথ ফুড’ টিম। ৩০ এপ্রিল শনিবার রাজধানী ঢাকার গুলশানের এসএ টিভি ভবনে এ বিষয়ে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

উভয় পক্ষ স্বাক্ষরের পর বাংলাদেশ ট্যুরিজম এক্সপ্লোরার্স এসোসিয়েশন (বিটিএ) এর চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম সাগর এবং রুপাই মিডিয়ার কর্ণধার নাট্য নির্মাতা জুলফিকার হোসাইন সোহাগের হাতে চুক্তিপত্র তুলে দেন এসএটিভির নির্বাহী পরিচালক রাশেদ কাঞ্চন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন এসএ টিভির অনুষ্ঠান প্রধান কাজী চপল এবং চ্যানেলটির বিজনেস ডিভোলপমেন্ট স্পেশালিস্ট পলাশ কুমার দাস। অনুষ্ঠান আয়োজকরা জানান আগামী জুন মাস থেকে প্রতি মঙ্গলবার দ্বিতীয় এবং চতুর্থ সপ্তাহে ‘ট্রাভেল উইথ ফুড’ অনুষ্ঠানটি প্রচার হবে। প্রাথমিকভাবে অনুষ্ঠানটির ১০০তম পর্ব প্রচারের লক্ষ নির্ধারণ করা হয়েছে। পরবর্তীতে এর পর্ব আরও বাড়বে বলে জানান অনুষ্ঠান আয়োজকরা। ভ্রমন পিপাসুদের জন্য নির্মিত ‘ট্রাভেল উইথ ফুড’ অনুষ্ঠানটির গবেষণা, গ্রন্থনা ও পরিকল্পনায় রয়েছে পর্যটনশিল্প যোদ্ধা শহিদুল ইসলাম সাগর। পরিচালনায় তরুণ মেধাবী নাট্য নির্মাতা জুলফিকার হোসাইন সোহাগ। এছাড়াও একদল তরুণ সাংস্কৃতিক কর্মী এই শো’য়ের সঙ্গে যুক্ত আছেন। সংশ্লিষ্টদের প্রত্যাশা সকলের সহযোগিতা ও আন্তরিক প্রচেষ্টায় দর্শকপ্রিয় একটি ট্রাভেল শো উপহার দিতে পারবেন তারা।

নতুন শো ‘ট্রাভেল উইথ ফুড’ প্রসঙ্গে এর প্রধান উদ্যোক্তা , বিটিএ’র চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম সাগর বলেন মূলত পর্যটনশিল্প বিকাশে এর প্রচার এবং প্রসারের আন্দোলনের অংশ হিসেবে বিশেষ এই ট্রাভেল শো সম্প্রচারের উদ্যোগ নিয়েছি আমরা। বাংলাদেশের জনপ্রিয় পর্যটন এলাকার পাশাপাশি অপেক্ষাকৃত কম পরিচিত পর্যটন ক্ষেত্রগুলোকে চিহ্নিত করে দর্শকদের সঙ্গে পরিচয় করার পাশাপাশি ওই এলাকার ঐতিহ্যবাহী খাবার দাবারের সঙ্গে এই শো’য়ের মাধ্যমে দর্শকদের পরিচয় করিয়ে দিতে চাই। এতে দেশি বিদেশী পর্যটকরা ওই এলাকার বিষয়ে আগ্রহী হবেন। এতে করে বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পের বিকাশ হবে বলে আমরা বিশ্বাস করি।

শহিদুল ইসলাম সাগর বলেন একজন ট্রাভেলারের কাছে পুরো পৃথিবীটাই তাঁর বাড়ি , সুনীল আকাশ বাড়ির ছাদ ! কিংবা সবুজ ঘাসের গালিচা তাঁর প্রশান্তির বিছানা ! তার কাছে সারা দুনিয়াটা একটি মহাগ্রন্থ ! তিনি প্রতিদিন পড়ে যান এক একটি পৃষ্ঠা – পাহাড়, সমুদ্র, হিমালয় আর প্রকৃতির সরল সমীকরণে মেলান জীবনের অংক । পাখির গানের সুরে আর রঙ্গিন ফুলের বর্নীল জীবনের হাতছানিতে শুরু হয় তাঁর স্নিগ্ধ সুবাসিত সকাল ! ভ্রমন পিপাসু মানুষের যাপিত জীবনে যেন প্রতি মুহুর্তে বাতাসে ভেসে আসে নানা বাহারি খাবারের ঘ্রান । যেখানে, সুস্বাদু খাবারের বাহারী পশরা সাজিয়ে অপেক্ষায় থাকে রন্ধনশিল্পীরা, ভ্রমণ হয় আনন্দময় । বাংলার গ্রামীন জনপদের রমনীদের রন্ধন শিল্পের শৈল্পিক রুপ আর জিভে জল ঝরানো স্বাদের ছন্দে, পুর্ণতা পায় তাঁর প্রতিটি ভ্রমণের কাব্য । হয়তো কখনো আহার হয় সমুদ্রে তীরে সতেজ বাহারী খাবারে , আবার কখনো পাহাড়ে বসে চলে পাহাড়ী আয়োজন । আর রাত্রী ভোজন চলে গ্রামীন প্রকৃতির মাঝে একান্তে অথবা দল বেঁধে । এমনি রোমাঞ্চকর ভ্রমণ আর নানা দেশের জানা-অজানা, বাহারী, সুস্বাদু ও ঐতিহ্যবাহী খাবারের সাথে দর্শকদের পরিচয় ঘটাতেই মূলত ট্রাভেল শো- ‘ট্রাভেল উইথ ফুড’ এর যাত্রা শুরু। তরুণ নির্মাতা জুলফিকার হোসাইন সোহাগের পরিচালন মেধার স্ফুরণে অনুষ্ঠানটি প্রাণবন্ত এবং দর্শক নন্দিত হবে আশা করি ।দর্শকদের বলি অনুষ্ঠানটি খুব শীঘ্রই দেখবেন আপনার প্রিয় টেলিভিশনের পর্দায়.। অনুষ্ঠানটি দর্শকদের বাড়তি আনন্দ দেবে এমনটাই প্রত্যাশা আমাদের।