২০ দল রাস্তায় নামলে সরকার পালাবে: নজরুল

0
29

অনলাইন ডেস্ক : কোটা আন্দোলনের পর নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে সরকার নতি স্বীকার করছে দাবি করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘আমরাও (২০ দলীয় জোট) রাস্তায় নামলে এরা নতি স্বীকার করে পালিয়ে যাবে।’
বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ ইসলামিক পার্টি (বিআইপি) আয়োজিত ‘প্রশাসনিক হস্তক্ষেপ ও নির্বাচন কমিশনের নিষ্ক্রিয়তার প্রেক্ষাপটে জাতীয় নির্বাচনকালীন ব্যবস্থা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
সম্প্রতি কোটা সংস্কার আন্দোলন ও চলমান কোমলমতি শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের কথা উল্লেখ করে নজরুল ইসলাম বলেন, ‘সমস্ত পরিস্থিতি ও অভিজ্ঞতা আমাদের পক্ষে। এই সরকারের পায়ের নিচের মাটি একেবারে নড়বড়ে। কোটা সংস্কার আন্দোলনে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সামনে এরা (সরকার) নতি স্বীকার করেছে। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখেও এরা নতি স্বীকার করেছে। আমরাও (২০ দলীয় জোট) রাস্তায় নামলে এরা নতি স্বীকার করে পালিয়ে যাবে।’
নজরুল বলেন, ‘আমরা গত কিছুদিনে বেশ কয়েকটি ঘটনা দেখলাম। কোটা সংস্কারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ সারা দেশে ছাত্র-ছাত্রীরা যখন আন্দোলন করল, এই অবৈধ সরকার তখন নতি স্বীকার করেছে। আবার গত তিন-চার দিন ধরে কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের কাছেও নতি স্বীকার করেছে। অথচ যতটা শক্তিশালী বলে নিজেকে জাহির করে এরা (সরকার), বাস্তবে মোটেও ততটা শক্তিশালী নয়।’
বিএনপির এই শীর্ষ নেতা বলেন, ‘যদি ঐক্যবদ্ধভাবে আমরা সব শ্রেণী-পেশার মানুষ রাস্তায় নামতে পারি, আমাদের সামনেও এই সরকার নতি স্বীকার করবে। কারণ, এই সরকারের নৈতিক কোনো ভিত্তি নেই। তারা জনগণের ভোটে নির্বাচিত সরকার নয়। তারা জোর করে ক্ষমতায় এসে পুলিশ প্রশাসন দিয়ে টিকে আছে। এ ধরনের সরকার আন্দোলনের মুখে টিকে থাকতে পারে না। আমাদের সে আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।’
সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবি জানিয়ে বিএনপির এই নীতিনির্ধারক বলেন, ‘সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে সর্বপ্রথম বেগম জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে। নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকার প্রতিষ্ঠিত করতে হবে এবং এই মেরুদণ্ডহীন নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন করতে হবে।
বিআইপি সভাপতি আবু তাহের চৌধুরীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় পার্টির মহাসচিব আবুল কাশেম, ডিএলের সাধারণ সম্পাদক সাইফ উদ্দীন মনি, এনডিপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মঞ্জুর হোসেন ঈশা, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সহ-সাধারণ সম্পাদক আরিফা সুলতানা রুমা, জিনাফের সভাপতি লায়ন মিয়া মো. আনোয়ার, দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন প্রমুখ বক্তব্য দেন।