সৈয়দপুরে যাতায়াতের রাস্তায় বাঁশের বেড়া অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে একটি পরিবার

0
228

সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি : সৈয়দপুরের বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের কয়া মিস্ত্রিপাড়া হিন্দুপাড়ায় যাতায়াতের রাস্তায় বাঁশের বেড়া দেয়ায় অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে একটি পরিবার। জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষ জোড় পূর্বক জবর দখলের চেষ্টা করছে বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।
জানা যায়, হিন্দু পাড়ার মৃত. শম্ভুনাথ রায়ের বিপ্লব চন্দ্র রায়ের সাথে প্রতিবেশী মৃত. তারিনী কান্তি রায়ের পরিবারের সাথে দীর্ঘদিন জমি জমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এরই জের ধরে প্রতিপক্ষ প্রায়ই বিপ্লব চন্দ্র রায়ের বসতভিটাসহ সকল সম্পত্তি জবর দখল করার প্রয়াসে ঝগড়ার সৃষ্টি করে মিথ্যে মামলা দিয়ে হয়রানী করাসহ নানাভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে চলেছে। এর প্রেক্ষিতে বিপ্লব চন্দ্র জীবনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ১০৭ ধারায় নীলফামারী বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের আদালতে গত ৬ অক্টোবর একটি মামলা করেন। এতে তারিনী চন্দ্র রায়ের পুত্র উমেশ চন্দ্র রায়, অজিত চন্দ্র রায়, ইশ্বর চন্দ্র রায় ও তার পুত্র কার্তিক চন্দ্র রায় এবং তার পুত্র নিপু চন্দ্র রায়, কনক চন্দ্র রায়, নিতু রায়, অজিত চন্দ্রের পুত্র বিনয় চন্দ্র রায়, হিরালাল চন্দ্র রায়, রতন চন্দ্র রায় এবং ্উমেশ চন্দ্রের পুত্র সুশান্ত চন্দ্র রায় ও চিনি চন্দ্র রায় কে আসামী করেন।
এর পর থেকে প্রতিপক্ষের হয়রানীর মাত্রা বেড়ে যায়। এরই ধারাবাহিকতায় গত ৪ ডিসেম্বর সকালে বিপ্লবের বাড়ি থেকে যাতায়াতের দীর্ঘদিনের ব্যবহৃত রাস্তায় বাঁশের বেড়া দিয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে তারিনী চন্দ্রের পরিবারের সদস্যরা। এতে অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে বিপ্লবের পরিবার। তারা এ ব্যাপারে বোতলাগাড়ী ইউনিয়ন চেয়ারম্যানসহ ওয়ার্ড মেম্বার বাবলুকে বিষয়টি অবহিত করেন। প্রতিপক্ষ জনবলে বেশি ও প্রভাবশালী হওয়ায় বিপ্লবের পরিবারের প্রতি জোড় জবদস্তিমূলকভাবে নানা নির্যাতন ও হয়রানী করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন বিপ্লবের পরিবারের লোকজন। এ ব্যাপারে প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ দাবি করেছেন তারা।
এ নিয়ে মুঠোফোনে ওয়ার্ড মেম্বার আজগার আলী বাবলুর সাথে কথা হলে তিনি জানান, আমরা এখন সরকারী কাজে ব্যস্ত আছি। অবসর হলেই ঘটনাস্থলে যাবো।