সুপার ওভারে খুলনাকে হারাল চিটাগং

0
15

অনলাইন ডেস্ক: বিপিএলের ষষ্ঠ আসর মাঠে গড়াচ্ছে। আর এই আসরে এসে দেখা মিলল বিপিএলে প্রথম সুপার ওভারের ম্যাচ। খুলনা টাইটান্স-চিটাগং ভাইকিংস ম্যাচে দেখা মিলল সেই রোমাঞ্চ। সেই সুপার ওভার থেকে আসরের প্রথম জয়ের দারুণ এক সুযোগ ছিল খুলনার সামনে। কিন্তু চতুর্থ ম্যাচেও জয়হীন তারা। সুপার ওভারে চিটাগংয়ের কাছে হেরেছে তারা।

প্রথমে ব্যাট করে বড়ো রান তুলতে পারেনি খুলনা। মিরপুরের উইকেটে রানটা ছোটও ছিল না। প্রথমে ব্যাট করে ১৫১ রান সংগ্রহ করে খুলনা। সেই রান তুলতে পারেনি চিটাগং ভাইকিংস। খুলনার সমান রান তোলে তারাও। ম্যাচ গড়ায় সুপার ওভারে।

খুলনার হয়ে মাহমুদুল্লাহ এ ম্যাচে ৩৩ রান করেন। এছাড়া ম্যালান করেন ৪৫ রান। কিন্তু শেষ দিকে ভালো রান তুলতে পারেনি খুলনা। শেষ তিন ওভারে খুলনা তুলতে পারে মোটে ২০ রান। এরপর লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে জয়ের পথেই ছিল চিটাগং। মুশফিক এবং ইয়াসির আলী ভালো ব্যাটিং করেন। দলকে জয়ের পথে রাখেন তারা।

ইয়াসির আলী ৪১ রান করে ফেরেন। এরপর ভুল শট খেলে আউট হন মুশফিক। তিনি খেলেন ২৬ বলে ৩৪ রানের ইনিংস। তার আগে ২৩ রান করে আউট হন মোসাদ্দেক। ম্যাচ বেরিয়ে যায় চিটাগংয়ের হাত থেকে। মধ্যে মনে হয়েছিল ম্যাচ হেরেই যাবে তারা। খুলনা পাবে আসরের প্রথম জয়।

শেষ ওভারে চিটাগংয়ের জয়ের জন্য দরকার ছিল ১৯ রান। আরিফুলকে বল করার দায়িত্ব দেন মাহমুদুল্লাহ। শেষ ওভারে স্পিন না করার সিদ্ধান্ত থেকে আরিফুলকে বলে দেওয়া। কিন্তু তিনি রান আটকে ম্যাচ বের করে নিতে পারেননি। দিয়ে বসেন ১৮ রান। ম্যাচ টাই হয়।

এরপর মাঠেন গড়ায় বিপিএল ইতিহাসের প্রথম সুপার ওভার। সেই সুপার ওভারে প্রথমে ব্যাট করে চিটাগং তোলে ১১ রান। খুলনার হয়ে বল করেন আলী খানের বদলে বিপিএল খেলতে আসা জুনায়েদ খান। জবাবে খুলনা তুলতে পারে ৯ রান। চিটাগংয়ের হয়ে শেষ ওভারে তিন ছক্কা হাকিয়ে ম্যাচ টাই করা ফ্রাইলিংকই সুপার ওভারে ম্যাচ জেতান চিটাগংকে।