শাবনূর এলেন, তবে…

0
108

বাবুল হৃদয় : তখন রাত ৭টা। ১২ জানুয়ারি ‘পাগল মানুষ’ সিনেমার মুক্তি উপলক্ষে সোমবার (৮ ডিসেম্বর) ঢাকার মগবাজারের একটি অভিজাত হোটেলে ‘মিট দ্যা প্রেস’ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় রাত ৭টা ৩০ মিনিটে। যথা সময়ে কর্মব্যস্ত আমন্ত্রিত সাংবাদিক উপস্তিত থাকলেও সিনেমার অভিনেতা ডন ও নায়ক শাহের খান ছাড়া অন্য কোন অভিনয় শিল্পী এসে পৌঁছায়নি।
ততক্ষণে আয়োজক নায়ক শাহের খান টেনশনে হাটাহাটি শুরু করে দিয়েছেন। চিন্তাটা যেন তারই। এরমধ্যে ৭টা ২০ মিনিটে উপস্থিত হলেন ‘পাগল মানুষ’ সিনেমার প্রধান ভিলেন ও শিল্পী সমিতির সভাপতি মিশা সওদারগর। মিশাকে এগিয়ে এনে যেন প্রাণ পেলেন আয়োজক শাহের খান।
এবার অপেক্ষার পালা এ সিনেমার প্রধান অভিনেত্রী নন্দিত নায়িকা শাবনূরের জন্য। সিনেমার সহযোগী প্রযোজক ও আয়োজক শাবনূরকে মুঠোফোনে বারবার তাড়া দিলে শাবনুর তাদের জানিয়ে দেন হঠাৎ তার জ্বর এসেছে তিনি অসুস্থ, আসতে পারবেন না। নন্দিত এই নায়িকার এমন কর্মকান্ডে হতাশ হয়েছেন আমন্ত্রিত সাংবাদিকরা। কি আর করার? মিশা সওদাগরকে প্রধান অতিথি করে যথা সময়ে শুরু হয় ‘মিট দ্যা প্রেস’।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মিশা বলেন, ‘সাংবাদিকরা যথা সময়ে অনুষ্ঠানে এলেও আমরা শিল্পীরা আসতে পারিনা, এটা আমাদের ব্যর্থতা। আমাদের জন্য আজ সিনেমার এই দশা। আসলে আমরা শিল্পী হতে পারিনি, অভিনেতা হয়েছি। আমাদের শিল্পী হতে হবে। আমাদের কারণেই আজ দর্শক আগের মতো সিনেমা দেখছে না। যারা নিয়মিত সিনেমা প্রযোজনা করতো একজনও নেই সিনেমায়। যে কারণে আমাদের চলচ্চিত্র মৃত প্রায়। নতুন কিছু সিনেমা মাঝেমধ্যে আলোচনায় আসলেও সিনেমা নিয়ে এখন ভাববার বিষয়।’
মিট দ্যা প্রেস অনুষ্ঠানে এ সময় আরও বক্তব্য দেন অভিনেতা ডন, এনাম আহমেদ, আতিকুর রহমান লাভলুসহ আমন্ত্রিত অতিথিরা। সিনিয়র সাংবাদিক মনিরুল ইসলামের সঞ্চলায় অনুষ্ঠান শেষে রাতের খাবার টেবিলে যখন সাংবাদিকরা, এ সময় নায়ক এসে হাসতে হাসতে জানালেন শাবনূর আসছেন। সত্যিই তিনি আসলেন, তবে অনেক প্রশ্নের সম্মুখীন হয়ে। অনেক আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দিয়ে।
রাতের খাবার শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন শাবনূর। তিনি দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, ‘আমার শরীরটা আসলে ভালো নেই। আমি আসতামই না, আপনারা সবাই আসলেন এজন্য কষ্ট করে হলেও এসেছি। আপনারা ‘পাগল মানুষ’ সিনেমার জন্য দোয়া করবেন। নতুন নায়ক শায়ের খান এ সিনেমায় আমার হিরো, ও অনেক কষ্ঠ করেছে সিনেমাটি জন্য, ওকে নিয়ে আপনারা লিখবেন।’
শাবনূর আরও বলেন, ‘এই সিনেমার পরিচালক এম এম সরকার পুরো সিনেমাটি শেষ করে যেতে পারেনি। তার পরিচালিত প্রায় সব সিনেমা হিট হয়েছে। মানুষ হিসেবেও ভালো ছিলেন। তিনি আমাকে মা ছাড়া কথা বলতেন না। আমাকে অনেক আদর করতে। তার মাগফিরাত কামনা করছি।’
১২ জানুয়ারি সারাদেশে ৫০টি হলে মুক্তি পাচ্ছে ‘পাগল মানুষ’। এ সিনেমা মুক্তির মধ্য দিয়ে দীর্ঘ ৫ বছর পর রূপালী পর্দায় দেখা যাবে শাবনূরকে।
পরিচালক এম এম সরকারের মৃত্যুর পর সিনেমার কাজ বন্ধ হয়ে যায়। বাকি ছিল অল্প কিছু কাজ। চার বছর পর ছবিটির বাকি অংশ শেষ করার দায়িত্ব নেন পরিচালকের এক সময়ের সহকারী বর্তমানে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির স্বনামধন্য নির্মাতা বদিউল আলম খোকন। তার সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছবিটি মুক্তি পেতে যাচ্ছে।