মিরসরাইয়ে জনপ্রিয়তা পাচ্ছে পোকা দমনে জালের ব্যবহার

0
97

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে ধীরে ধীরে জনপ্রিয়তা পাচ্ছে জাল দিয়ে পোকা দমন। কৃষকরা ক্ষেতে ক্ষতিকর কীটনাশকের ব্যবহার কমিয়ে জাল দিয়ে পোকা দমনকে প্রাধান্য দিচ্ছে। ফলে বিষয়টি পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে।

জানা গেছে, মিরসরাইয়ের বিভিন্ন ইউনিয়নের কৃষকরা খেতের পোকা দমনে জাল ব্যবহার করছে। তারা ক্ষেতের চারপাশে খুঁটি লাগিয়ে জাল দিয়ে বেড়া দিয়ে দেয়। ফলে ফসলের ক্ষতিকর পোকা জাল অতিক্রম করে ভেতরে প্রবেশ করতে পারে না। এছাড়া ফসলের ক্ষতি করে, এমন পাখিও ফসল নষ্ট করতে পারে না।

একাধিক কৃষক জানান, খেতে ক্ষতিকর কীটনাশক ব্যবহারের ফলে বিভিন্ন প্রাণী মারা যায়। ফলে পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হয়। এছাড়া কীটনাশক কিনতে বেশি অর্থেরও প্রয়োজন হয়। তাই তারা জাল দিয়ে ফসলের পোকা দমনের চেষ্টা করেন। তারা আরো জানান, খিরা, লাউ, বরবটি, শিম, করলা, কুমড়া ক্ষেতে জাল ব্যবহার করলে সহজে ক্ষতিকর কীটপতঙ্গ ও পশুপাখি জমিতে প্রবেশ করতে পারে না। ফলে ফসল বা সবজির কোনো ক্ষতি হয় না। তাছাড়া জাল ব্যবহারের ফলে সবজি থাকে বিষমুক্ত।

উপজেলা হিঙ্গুলী ইউনিয়নের পূর্ব হিঙ্গুলী গ্রামের কৃষক নিপক দে, অরুন চৌধুরী জানান, বিগত কয়েক বছর যাবত সবজির ক্ষেতে জাল ব্যবহার করে আসছেন। বিশেষ করে খিরা ক্ষেতে জাল ব্যবহারের ফলে কীটপতঙ্গ ও ক্ষতিকর পশুপাখি ক্ষেতে প্রবেশ করতে পারে না। ক্ষেতের সবজি থাকে ভালো।

এবছর সবচেয়ে বেশি সবজি চাষ হয়েছে ১২ নম্বর খৈয়াছড়া ও ৮ নম্বর দুর্গাপুর ইউনিয়নের হাজিশ্বরাই গ্রামে। তাই হাজিশ্বরাই গ্রামে পোকাদমনে বেশি জাল ব্যবহার করা হয়েছে।

হাজিশ্বরাই গ্রামের কৃষকরা বলেন, জাল ব্যবহারে পোকাদমন খুব উপকারী। এতে ফসলের কোনো ক্ষতি হয় না। ধীরে ধীরে জাল দিয়ে পোকাদমন জনপ্রিয় হচ্ছে বলে তিনি জানান।

মিরসরাই কৃষি অফিস সূত্রে জানান গেছে, শীত মৌসুমে মিরসরাইয়ের ১৬টি ইউনিয়ন ও ২টি পৌরসভায় কয়েক হাজার হেক্টর জমিতে শীতকালীন সবজি চাষ হয়ে থাকে। এসব সবজি উপজেলার চাহিদা মিটিয়ে দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় সরবরাহ করা হয়ে থাকে। তবে অধিকাংশ সময় সবজি ক্ষেতে ক্ষতিকর পোকামাকড় আক্রমণ করে। ফলে কৃষকরা ক্ষতির সম্মুখীন হয়।

মিরসরাই কৃষি কর্মকর্তা বুলবুল আহম্মদ বলেন, মিরসরাইয়ে জাল দিয়ে পোকাদমন জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। তবে কারেন্ট জাল দিয়ে পোকাদমন করা ঠিক নয়। এতে নিরীহ প্রাণী মারা যেতে পারে। জাল দিয়ে পোকাদমনের ফলে অতিরিক্তি কীটনাশক ব্যবহার করতে হয় না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here