‘ভ্যাট ও আয়কর হবে রাজস্বের প্রধান খাত’

0
66

অনলাইন ডেস্ক : ভবিষ্যতে মূল্য সংযোজন কর এবং আয়কর থেকেই সরকার বেশি আয় করতে চায় বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনি বলেছেন, কাস্টমসের প্রধান দায়িত্ব শুল্ক আদায়ের বদলে হবে অবৈধ পণ্য ঠেকানো।

আন্তর্জাতিক কাস্টমস দিবস উপলক্ষে শুক্রবার রাতে রাজধানীর একটি হোটেলে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড আয়োজিত এক আলোচনায় অর্থমন্ত্রী এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘ভবিষ্যত চিন্তা করলে দেখা যায়, মূসক ও আয়কর অনবরত বাড়বে। কাস্টমস সোর্স অব রিভিনিউ অনবরত সংকীর্ণ হতে থাকবে।’

রাজস্ব আদায়ের ক্ষেত্রে এখন মূল্য সংযোজন কর বা ভ্যাট ও আয়করের মধ্যে ‘প্রতিযোগিতা’ আছে জানিয় মুহিত বলেন, ‘এখানে কাস্টমস আরো নিচে নেমে গেছে। ভবিষ্যতে কাস্টমস আরো বেশি নামবে।’

‘আগামী পাঁচ, দশ বছরের মধ্যেই দেখব কাস্টমসের প্রধান কর্তব্য হচ্ছে অনাকাঙ্ক্ষিত দ্রব্যাদি যেন দেশে আসতে না পারে, সে ব্যবস্থা করা। এটি হবে তাদের প্রধান কাজ। রাজস্ব আদায় হবে তাদের গৌণ বিষয়। এটি হলে তাদের আয় অনেকাংশে বেড়ে যাবে।’

বর্তমান সরকারের আমলে আয়করদাতার সংখ্যা উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বেড়েছে বলেও জানান মন্ত্রী। বলেন, ‘আগে আমাদের দেশে ১৪ লাখ মানুষ আয়কর দিতো। তা এখন বেড়ে ৩১ লাখে পৌঁছে গেছে। তবে যাদের বয়সসীমা ৪০ এর নিচে, তাদের থেকে বেশি আয়কর জমা হচ্ছে। এটি আমাদের দেশের জন্য ভালো একটি নির্দেশক।’

সরকারের আয় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাজেটের আকারও অনেক বাড়বে বলে জানান অর্থমন্ত্রী। বলেন, ‘আমাদের আয়তন অনুযায়ী আমাদের বাজেট এখনো খুব কম। তবে আমাদের একটি টার্গেট আছে। ২০২১ সালের মধ্যে আমাদের বাজেটের আয়তন বাড়াতে চাই। এটা আমাদের বড় ধরনের টার্গেট।’

উন্নয়নের জন্যে ব্যবসার প্রসার দরকার জানিয়ে মুহিত বলেন, ‘এই প্রসারের মাধ্যমে রাজস্ব আদায় অনেকখানি বাড়তে পারে।’

কাস্টমস দিবস পালনের উদ্দেশ্য বর্ণনা করে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের দিবসগুলো পালনের প্রধান উদ্দেশ্য হলো জনগণকে সচেতন করা, সেই সাথে রাজস্ব আদায় কীভাবে বাড়ানো যেতে পারে সেই বিষয়ে আলোচনা করা। সত্যিকারভাবে বলতে গেলে আমরা এর ফসলও পাচ্ছি। আমাদের রাজস্বও অনেক বাড়ছে। সেই সাথে আমাদের বাজেটের আয়তনও বাড়ছে।’