ভিক্ষা কইরা সংসার চালামু নাকি চিকিৎসা করুম

0
99

মোঃ রোমান হাওলাদার, সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ ভিক্ষাই উপার্জনের একমাত্র উপায় মনির হোসেনের (৩৫) এর। মুন্সীগঞ্জের সিরাজদীখান উপজেলার বয়রাগাদি ইউনিয়নের কুমারখালী গ্রামের প্রয়াত সৈয়দ আলীর ছেলে সে। দীর্ঘদিন ধরে তিনি ভুগছেন এক বিরল রোগে। মুখ মন্ডলের চামড়ায় অসংখ্য শিকড়ের মত গজিয়েছে তার। উপজেলার বিভিন্নস্থানে তাকে দেখা যায় মানুষের দ্বারে দ্বারে ভিক্ষা করছেন। মনির হোসেনকে এই রোগটি সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করলে তিনি জানান, ডাক্তাররা জানিয়েছে তার এই রোগটির নাম নিউরোফিব্রোমা। তিনি দীর্ঘ ১২ বছর ধরে এই রোগে ভুগছেন। তিনি এই রোগ থেকে মুক্তি পেতে চান। ১০ বছর আগে একবার তার মুখ মন্ডলে অপারেশন করাহলেও মুক্তি মেলেনি তার এই বিরল রোগ থেকে। মনির হোসেনের সংসারে স্ত্রী ও ২ সন্তান। ইতোমধ্যে এই রোগের কারণে নিজের বাম চোখের আলো হারিয়েছে মনির হোসেন। দীর্ঘ দিনের দাম্পত্য জীবন এখন বিষাদে পরিণত হয়েছে তার। অন্যদিকে, বিরল এই রোগ থেকে মুক্তি পেতে হলে তার মুখ মন্ডলে শিকড়ের মতো ঝুলে থাকা চামড়া অপারেশন করতে ৫ থেকে ৬ লক্ষ টাকা লাগবে বলে জানিয়েছে মনির হোসেন। সম্প্রতি ঢাকার একটি বেসরকারী হাসপাতালের চিকিৎসকরা তার চিকিৎসা খরচের ওই চিত্র তুলে ধরেছে মনি হোসেনের সামনে। অথচ ভিক্ষা করেই সংসার চলে তার। তাই, এই রোগ থেকে মুক্তি মেলবে কি কখনো? কখনো কি সে ফিরে পাবে সুস্থ জীবন? এমন ছোট ছোট প্রশ্ন গুলো বৃহৎ হতাশা নিয়ে বার বার নাড়া দিয়ে যায় মনির হোসেনের মনে।
মনির হোসেন কান্না জড়িত কন্ঠে অকুতি করে জানালেন, আমার বাপ দাদার যা সম্পদ আছিল চিকিৎসার কারনে অনেক আগেই বেচতে হইছে। এখন ভিক্ষা কইরা নিজের সংসার চালামু নাকি পোলাপানের লেখাপড়া চালামু। চিকিৎসাতো দূরের কথা। দেশের বড়লোক যারা আছে আমারে যদি একটু সাহায্য করতো তাহলে আমি চিকিৎসাটা করাইতে পারতাম।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here