বিএসটিআই আইনে শাস্তি বাড়ছে

0
38

অনলাইন ডেস্ক:বিভিন্ন অপরাধের জন্য শাস্তির পাশাপাশি জরিমানার পরিমাণ বাড়িয়ে বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইন্সটিটিউশন (বিএসটিআই) আইনের খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে সরকার।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সোমবার তার কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকে এই আইনের খসড়ার অনুমোদন দেওয়া হয়।
সচিবালয়ে এক ব্রিফিংয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম বলেন, ১৯৮৫ সালের বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইন্সটিটিউশন অর্ডিনেন্সকে সংশোধন করে নতুন আইন করা হচ্ছে। তেমন বড় কোনো পরিবর্তন নেই, শাস্তিগুলো বাড়ানো হয়েছে।
লাইসেন্স ছাড়া স্ট্যান্ডার্ডস মান (বিএসটিআই-এর লোগো) ব্যবহার করলে ২ বছর কারাদণ্ড, অনাদায়ে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হবে। জরিমানা ২৫ হাজার টাকার কম করা যাবে না।
এই অপরাধের জন্য বর্তমান আইনে ছয় মাস কারাদণ্ড ও ১৫ হাজার টাকা জরিমানার বিধান আছে।
শফিউল আলম আরো জানান, লাইসেন্সের শর্ত লঙ্ঘন করে রপ্তানি নিষিদ্ধ পণ্য রপ্তানি করলে এক বছর কারাদণ্ড, ৫০ হাজার টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ড দেওয়া হবে। জরিমানা হবে কমপক্ষে ১০ হাজার টাকা। এই অপরাধের জন্য বর্তমান আইন অনুযায়ী অর্থদণ্ডসহ এক বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়।
“পণ্য বিক্রয়, বিতরণ, বাণিজ্যিক বিতরণ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন লঙ্ঘণ করলে চার বছর কারাদণ্ড, দুই লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ড দেওয়া হবে। জরিমানা ৫০ হাজারের কম হবে না। এই অপরাধের জন্য আগে সাজা ছিল চার বছর কারাদণ্ড, এক লাখ টাকা জরিমানা।”
মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, কোনো অপরাধের জন্য এই আইনের কোনো ধারায় কাভার না করলে সর্বোচ্চ এক লাখ ও সর্বনিম্ন ২৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত করা হবে। আগে কোনো ধারায় কাভার না করলে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হত।
প্রস্তাবিত বিএসটিআই আইনে একই অপরাধ দ্বিতীয়বার করলে দ্বিগুণ শাস্তি দেওয়া হবে জানিয়ে শফিউল বলেন, কেউ সংক্ষুব্ধ হলে আদেশ পাওয়ার তিন মাসের মধ্যে নির্ধারিত ফি জমা দিয়ে আপিল করতে পারবেন।