ফুটবলকে বিদায় জানালেন আর্জেন্টাইন তারকা হাভিয়ের মাশ্চেরানো

0
34
সব ধরনের ফুটবলকে বিদায় জানালেন বার্সেলোনা এবং লিভারপুলের সাবেক মিডফিল্ডার হাভিয়ের মাশ্চেরানো। ৩৬ বছর বয়সী এই আর্জেন্টাইন তারকা একটি ক্লাবের হয়ে খেলছিলেন। রবিবার এক সংবাদ তিনি অবসরের ঘোষণা দেন। বার্সায় ৮ বছরের ক্যারিয়ারে দুইবার চ্যাম্পিয়নস লিগ এবং পাঁচবার লা লিগা মাশ্চেরানো জেতা বলেন, ‘আজকে পেশাদারভাবে ফুটবল ছাড়ার ঘোষণা দিতে চাই। এই ক্লাবকে ধন্যবাদ, তারা আর্জেন্টিনায় আমার ক্যারিয়ার শেষ করার সুযোগ দিয়েছে।’ আর্জেন্টিনার ইতিহাসে সর্বোচ্চ ১৪৭টি ম্যাচ খেলা মাশ্চেরানো রিভার প্লেটে তার ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন। ২০০৬ থেকে ২০০৭ পর্যন্ত ছিলেন ওয়েস্ট হ্যামে। এরপর চলে যান লিভারপুলে। কিংবদন্তি এই ফুটবলার হেবেই চীনা ফরচুন ক্লাবে যাওয়ার আগে ২০১০ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত বার্সায় ছিলেন। মাশ্চেরানো মূলত তার ট্যাকলিং স্টাইলের জন্য বেশি বিখ্যাত ছিলেন। বক্সের আশপাশে ফাউল ছাড়া বল ক্লিয়ার করায় এখনও তার জুড়ি মেলা ভার। ২০০৩ সালে আর্জেন্টিনায় অভিষেক হওয়া মাশ্চেরানো চারটি বিশ্বকাপ খেলেছেন। তবে আর্জেন্টিনার সাথে বড় কোনও সাফল্যের দেখা পাননি। বছর দুই আগেই জাতীয় দলের সঙ্গে সম্পর্ক চুকিয়ে ফেলেন তিনি।
ফুটবলকে বিদায় জানালেন মাশ্চেরানো

সব ধরনের ফুটবলকে বিদায় জানালেন বার্সেলোনা এবং লিভারপুলের সাবেক মিডফিল্ডার হাভিয়ের মাশ্চেরানো।

৩৬ বছর বয়সী এই আর্জেন্টাইন তারকা একটি ক্লাবের হয়ে খেলছিলেন। রবিবার এক সংবাদ তিনি অবসরের ঘোষণা দেন।
বার্সায় ৮ বছরের ক্যারিয়ারে দুইবার চ্যাম্পিয়নস লিগ এবং পাঁচবার লা লিগা মাশ্চেরানো জেতা বলেন, ‘আজকে পেশাদারভাবে ফুটবল ছাড়ার ঘোষণা দিতে চাই। এই ক্লাবকে ধন্যবাদ, তারা আর্জেন্টিনায় আমার ক্যারিয়ার শেষ করার সুযোগ দিয়েছে।’

আর্জেন্টিনার ইতিহাসে সর্বোচ্চ ১৪৭টি ম্যাচ খেলা মাশ্চেরানো রিভার প্লেটে তার ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন।

২০০৬ থেকে ২০০৭ পর্যন্ত ছিলেন ওয়েস্ট হ্যামে। এরপর চলে যান লিভারপুলে।

কিংবদন্তি এই ফুটবলার হেবেই চীনা ফরচুন ক্লাবে যাওয়ার আগে ২০১০ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত বার্সায় ছিলেন।

মাশ্চেরানো মূলত তার ট্যাকলিং স্টাইলের জন্য বেশি বিখ্যাত ছিলেন। বক্সের আশপাশে ফাউল ছাড়া বল ক্লিয়ার করায় এখনও তার জুড়ি মেলা ভার।

২০০৩ সালে আর্জেন্টিনায় অভিষেক হওয়া মাশ্চেরানো চারটি বিশ্বকাপ খেলেছেন। তবে আর্জেন্টিনার সাথে বড় কোনও সাফল্যের দেখা পাননি। বছর দুই আগেই জাতীয় দলের সঙ্গে সম্পর্ক চুকিয়ে ফেলেন তিনি।