ডিইউজের সভাপতি সূর্য, সাধারণ সম্পাদক সোহেল

0
1973

অনলাইন ডেস্ক : ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) একাংশের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন আবু জাফর সূর্য এবং দ্বিতীয় বারের মত সাধারণ সম্পাদক হলেন সোহেল হায়দার চৌধুরী।
বুধবার সকাল ৮টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত চলে ডিইউজের দ্বিবার্ষিক নির্বাচনের ভোট। ভোটগ্রহণের শেষ সময় বিকাল ৫টা থাকলেও ভোটগ্রহণ শেষ না হওয়ায় এক ঘণ্টা সময় বাড়ানো হয়। পরে রাতে ভোট গণণা শেষে জয়ী প্রার্থীকে বিজয়ী ঘোষণা করেন নির্বাচন কমিশন।
আবু জাফর সূর্য-সাজ্জাদ আলম খান তপু প্যানেল থেকে ৭১২ ভোট পেয়ে সভাপতি নির্বাচিত হন সূর্য। কুদ্দুস আফ্রাদ-সোহেল হায়দার চৌধুরী প্যানেল থেকে ৫৪৯ ভোট পেয়ে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন সোহেল।
সহ-সভাপতি পদে ৭০৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন খন্দকার মোজাম্মেল, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ৫৮৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন আক্তার হোসেন।
সাংগঠনিক পদে ৬৭৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল। কোষাধ্যক্ষ পদে ৯২৬ সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন উম্মুল ওয়ারা সুইটি।
প্রচার সম্পাদক জিহাদুর রহমান জিহাদ ৭০৩ ভোট, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক মাসুদ ঢালি ৬৭৩, জনকল্যাণ সম্পাদক ফারহানা মিলি ৫৬৯ ভোট, দপ্তর সম্পাদক আমিন মোহাম্মদ জুয়েল ৬১৬ ভোট পেয়েছেন।
নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণ ব্যানার, ফেস্টুনে ভরে যায়। সব প্রার্থী নিজেদের ছবি যুক্ত ব্যানার টানিয়েছেন। লাইন ধরে ভোটকেন্দ্রের সামনে প্রার্থীর সমর্থকরা দাঁড়িয়ে হাতে প্রচারপত্র নিয়ে দিনব্যাপী ভোটারদের কাছে ভোট চান। শান্তিপূর্ণভাবেই শেষ হয় সাংবাদিকদের ট্রেড ইউনিয়নের ভোটযুদ্ধ।
ডিইউজে নির্বাচন পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান মো. আবু তাহের ১৪ ফেব্রুয়ারি তফসিল ঘোষণা করেন। এবার ভোটার সংখ্যা ৩ হাজার ২৩৩ জন।
এবারের ডিইউজে নির্বাচনে ১৯ পদের বিপরীতে চারটি প্যানেল ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মিলে ৭৯ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন।
সাংবাদিকদের প্যানেল হলো- আবু জাফর সূর্য-সাজ্জাদ আলম খান তপু, আতাউর রহমান-এম এ কুদ্দুস, কুদ্দুস আফ্রাদ-সোহেল হায়দার চৌধুরী এবং জাফর ওয়াজেদ-খায়রুজ্জামান কামাল প্যানেল।
এছাড়া প্যানেলের বাইরে সাধারণ সম্পাদক পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী ছিলেন পাঁচজন। তারা হলেন- অমিয় ঘটক পুলক, অনুপ খাস্তগির, রওশন ঝুনু, সেবীকা রানী ও গাজী জহিরুল ইসলাম।
সহ-সভাপতি পদে লড়াই করেন আল আব্বাস, কাজী মোহাসীন, খন্দকার মোজাম্মেল হক, বরুণ ভৌমিক নয়ন ও মঞ্জুশ্রী। যুগ্ম সম্পাদক পদে লড়াই করেন খায়রুল আলম, আক্তার হোসেন, মোহাম্মদ শাহজাহান মিয়া ও শামীমা আক্তার।
নির্বাহী সদস্য নয় পদের বিপরীতে প্রার্থী লড়াই করেছেন ৩৪ জন।