জমে উঠেছে গলাচিপার চিকনিকান্দি ইউপি উপ-নির্বাচন

0
42

গলাচিপা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি
আর মাত্র কয়েক দিন পরেই পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলার চিকনিকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও এক মেম্বার পদে উপ নির্বাচন। গত পহেলা মার্চ ওই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এরশাদ হোসেন বাদলের মৃত্যু হলে পদটি শূন্য হয়। নির্বাচন কমিশন এ শূন্য পদে নির্বাচনের জন্য আগামী ১৫ মে ভোট গ্রহনের দিন নির্ধারন করেছে।
এদিকে, তফসিল ঘোষনার পর চিকনিকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের উপ-নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৫ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। একজন মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করায় নির্বাচনী মাঠে এখন ৪ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।
প্রর্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী (নৌকা মার্কা) সাজ্জাদ হোসেন রিয়াদ, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল(বিএনপি) মনোনীত প্রাথী(ধানের শীষ) সাবেক চেয়ারম্যান শিপলু খান, ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী (হাতপাখা) মো.জাকির হোসেন মুন্সী ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী(ঘোড়া) মো. মহসিন মিয়া।
স্থানীয় নির্বাচন অফিস সূত্র জানা যায়, এ ইউনিয়নে মোট ভোটার ১২ হাজার ৯৯৮ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৬ হাজার ২শ’ ও মহিলা ভোটার ৬ হাজার ৭৯৮ জন।
আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সাজ্জাদ হোসেন রিয়াদ সাবেক এমপি ও মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক মরহুম আ. বারেক মিয়ার ছেলে ও সদ্য প্রয়াত একই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এরশাদ হোসেন বাদলের কনিষ্ঠ সহোদর। অপরদিকে বিএনপির শিপলু খান এ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছিলেন। তার পিতা সাবেক এমপি আলহাজ্ব শাহজাহান খানও অবিভক্ত চিকনিকান্দি (চিকনিকান্দি ও গজালিয়া) ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন। দুই মেরুর দুই পরিবারই এ ইউনিয়নে রাজনৈতিকভাবে প্রভাবশালী। সরেজমিন এলাকায় গিয়ে ভোটারদের সাথে আলাপ করলে তারা জানান, এ দুই প্রার্থীর মধ্যে লড়াই হবে হাড্ডা হাড্ডি। আওয়ামী লীগ প্রার্থী সাজ্জাদ হোসেন রিয়াদ তার পিতার জনপ্রিয়তা  এবং বড় ভাই সদ্য প্রয়াত চেয়ারম্যান এরশাদ হোসেন বাদলের অকাল মৃত্যুতে ভোটারদের তার প্রতি বেশ সহমর্মিতা রয়েছে। এ কারণে তিনি জয়ের ব্যাপারে বেশ আশাবাদী।
তবে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর জন্য মাথাব্যাথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে দলের বিদ্রোহী প্রাথী মো. মহসিন মিয়া। তিনিও ভেটারদের দ্বারে দ্বারে ভোট ভিক্ষা করে চলেছেন। নৌকার ভোটে তিনি ভাল ভাবে থাবা মারতে পারলে আওয়ামী প্রার্থীর জয়ের সম্ভাবনা দোলাচলে দোলার আশংকা রয়েছে।
এদিক দিয়ে বিএনপি প্রাথী শিপলু খান কিছুটা স্বস্তিতে রয়েছেন। এ দলের প্রার্থী শিপলু খান সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ, ভোটারদের ভোট কেন্দ্রে নিরাপদে যেতে পারা নিশ্চিত, সরকার দলীয় প্রভাবমুক্ত নির্বাচন হলে তার জয় সময়ের ব্যাপার মাত্র। ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে আঞ্চলিকতা একটা বড় ফ্যাক্টর। নিজ নিজ এলাকার ভোটারদের ধরে রাখতে পারলে তারই এগিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে মনে করেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কোটখালী গ্রামের কয়েকজন ভোটার।
এছাড়া চরমোনাইয়ের পীরের দল ইসলামী আন্দোলনের উল্লেখযোগ্য মুরীদ রয়েছে এ ইউনিয়নে। এ দলের প্রার্থী মো. জাকির হোসেন মুন্সী সবাইকে একাট্টা করতে পারলে কার গলায় পড়বে জয়ের মালা তা নির্ণয় করা এখন কঠিন হয়ে পড়েছে।