এক ঘোড়া আপনি দুইবার কিনতে পারেন না, আমেরিকাকে ইরান

0
42

অনলাইন ডেস্ক:২০১৫ সালে পাশ্চাত্যের সঙ্গে স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতা নিয়ে আবার আলোচনায় বসার সম্ভাবনা সরাসরি নাকচ করে দিয়েছেন ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ। তিনি বলেছেন, তার দেশের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচিকে অন্তর্ভুক্ত করার লক্ষ্যে যে সংলাপের কথা বলা হচ্ছে তা সম্ভব নয়। খবর পার্সটুডের।
নিউ ইয়র্ক সফররত জারিফ আমেরিকার ব্লুমবার্গ টিভিকে দেয়া এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘আপনি কখনো এক ঘোড়া দুইবার কেনেন না।’ ইরানের পরমাণু কর্মসূচির পাশাপাশি সেদেশের ক্ষেপণাস্ত্র শক্তি নিয়ে নতুন করে চুক্তি স্বাক্ষরের লক্ষ্যে আমেরিকার সঙ্গে আবার আলোচনায় বসা সম্ভব কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে জারিফ একথা বলেন।
ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, শত্রুরা যখন মধ্যপ্রাচ্যে সমরাস্ত্রের পাহাড় গড়ে তুলছে তখন তার দেশ কোনো অবস্থায়ই নিজের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি ত্যাগ করবে না। মার্কিন সরকার ইরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিলে তেহরান তার ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি নিয়ে ওয়াশিংটনের সঙ্গে আলোচনায় বসতে পারে বলে যে ভুয়া খবর ছড়ানো হয়েছে সে সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে তিনি একথা বলেন।
জারিফ বলেন, ‘আমি (বার্তা সংস্থা এপির সঙ্গে সাক্ষাৎকারে) যা বলেছি তা ভুলভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। আমি অত্যন্ত স্পষ্ট ভাষায় বলেছি যে, আমাদের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি নিয়ে আলোচনায় বসার আগে আমেরিকাকে বহু পথ পাড়ি দিতে হবে। প্রথমত, এর আগে আমাদের সঙ্গে যে চুক্তি করেছে তা বাস্তবায়ন করতে হবে। এরপর তাদেরকে খুঁজে বের করতে হবে সমস্যাটা কোথায়। মার্কিন সরকার আমাদের অঞ্চলে পাঁচ হাজার কোটি ডলার মূল্যের সমরাস্ত্র বিক্রির চুক্তি করেছে। সে অস্ত্র সরবরাহ বন্ধ করতে হবে।’
ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, তার দেশ আমেরিকা-মেক্সিকো আলোচনা থেকে যথেষ্ট শিক্ষা গ্রহণ করেছে। সেখানে ট্রাম্প বাণিজ্য ও অভিবাসী সমস্যা নিয়ে মেক্সিকোকে হুমকি দিয়েছেন এবং চূড়ান্তভাবে চুক্তি স্বাক্ষরের জন্য আরো ছাড় আদায়ের চেষ্টা করছেন। জারিফ বলেন, ট্রাম্প মেক্সিকোর সঙ্গে নাফটা চুক্তি নিয়ে পুনরায় আলোচনা করতে গিয়ে নতুন নতুন দাবি তুলেছেন।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের স্বরূপ উন্মোচন করে দিয়ে মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ বলেন, ‘সুতরাং তিনি (ট্রাম্প) মনে করেন, যা আমার তার পুরোটাই আমাকে দিতে হবে। আর যা তোমার সেটা নিয়ে আলোচনা করতে হবে।’ এমন ব্যক্তির সঙ্গে ইরান আলোচনায় বসতে পারে না বলে তিনি আবারও জোর দিয়ে উল্লেখ করেন।