ঈদ পরবর্তী সময়টা হতে পারে ঝুঁকিপূর্ণ : সর্বত্র ছড়িয়ে পড়তে পারে করোনা

0
167

সৈয়দ মোঃ দেলোয়ার হোসাইন
নাড়ির টানে বাড়ি ফেরার ঐতিহ্য যেন হারিয়ে গেছে। স্বজনদের সাথে ঈদ উদযাপন এবার আষাঢ়ে গল্পের মত। সড়ক কিংবা মহাসড়কে নেই ঘরমুখো মানুষের চাপ। লঞ্চ-বাস কিংবা রেলস্টেশনে নেই অপেক্ষার ভিড়। আগের বছর গুলোতে ঈদের দিনেও ঘরমুখো মানুষের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ করা যেতো। কিন্তু এ বছর সড়ক-মহাসড়কে পুরোটাই বিপরীত চিত্র দেখা যায়। তবুও সচেতনতার অভাবের কারণে খেয়ালীপনা আর দুষ্টুমির ছলে অনেকেই পাড়া-মহল্লা কিংবা চায়ের দোকানে জটলা তৈরি করছে। আর এ কারণেই দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে পারে করোনা আর সংক্রমিত হতে পারে পুরো জাতি।
করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকারের নির্দেশনা উপেক্ষা করেই চলছে দৈনন্দিন জীবনের সকল কর্মকান্ড। সরকারের নির্দেশনাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে দৈনিক কেনাকাটা, ঈদের কেনাকাটা পাড়া, মহোল্লা কিংবা দোকানে জটলা তৈরি করা সহ ভাব বিনিময়ের আড্ডায় ব্যস্ত বেশির ভাগ মানুষ। এ সব কর্মকান্ড সম্পাদন করতে অনেক সময় রিক্সা,অটোরিক্সা ও সিএনজি তে চাপাচাপি করে যাতায়াত করতে দেখা যায় এসব মানুষদের। সাস্থ্য বিশেজ্ঞদের পরামর্শ কিংবা সরকারের নির্দেশনা কোন কিছুকেই তোয়াক্কা করছে না এসব মানুষ। নিজেদের ভাগ্য আর বিধাতার করুনাই এসব মানুষের ভরসা। ক
রোনা সংক্রমন প্রতিরোধে সামজিক দূরত্ব বজায় রাখা, ঘরে থাকা, নিয়মিত হাত পরিস্কার করা, মাস্ক ও হ্যান্ড গ্লোভস ব্যবহার করা এখন একটি ফানি বিষয়ে পরিনত হয়েছে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি অথবা প্রশাসনের উদ্দ্যেগে পথচারীদের হাত ধোয়ার ব্যবস্থা থাকলেও হাত ধোয়ার প্রতি অনিহা দেখা যায় এসব মানুষের মধ্যে। এ বিষয় এসব মানুষের সাথে আলোচনায় বের হয়ে আসে ভিন্ন ভিন্ন মত, কেউ কেউ বলছেন খাদ্য সংকট ও জীবিকার তাগিদে বাধ্য হয়ে ঘর থেকে বের হয়েছে তারা। আবার কেউ কেউ বলছেন বন্ধি দশা ভালো লাগছেনা তাদের । কেউ আবার নিজেও জানেন না কেন বের হয়েছেন ।
বিশেষজ্ঞদের মতে আইনের প্রতি শ্রদ্ধা ও জীবনের প্রতি মূল্যবোদের অভাব এবং পারিবারিক অশান্তির কারনেই এসব মানুষের মধ্যে এমন বেপরোয়া মনোভাব বিরাজ করছে। এখনি এদের মনবাভ পরিবর্তন করে করোনা সংক্রামন রোধে সরকারের নির্দেশ মানতে বাধ্য করতে না পারলে এদের মাধ্যমে সর্বত্রই ছরিয়ে পরবে করোনা নামের এই প্রানঘাতি ভাইরাস বাড়বে সংকট আর প্রান হারাবে সাধারন মানুষ।

লেখক : সৈয়দ মোঃ দেলোয়ার হোসাইন, যুগ্ম সম্পাদক, বার্তা প্রবাহ।