আমিরের পদত্যাগের প্রশ্নই আসে না: জামায়াত

0
98

অনলাইন ডেস্ক : মুক্তিযুদ্ধের ভূমিকার জন্য ক্ষমা চাওয়া ইস্যুতে দলের আমির মকবুল আহমাদের পদত্যাগের খবর উড়িয়ে দিয়েছে মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানের পক্ষে অস্ত্র ধরা দলটি।
মকবুলের পদত্যাগের বিষয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর প্রকাশের প্রেক্ষিতে সোমবার দলের পক্ষ থেকে দেওয়া এক বিবৃতিতে এ কথা জানানো হয়েছে।
জামায়াতের প্রচার বিভাগের সেক্রেটারি তাসনীম আলম সাক্ষরিত ওই বিবৃতিতে বলা হয়, ‘আমির পদে মকবুল আহমাদের না থাকা বা পদত্যাগ করার ইচ্ছা ব্যক্ত করার প্রশ্নই আসে না।’
স্বাধীনতাবিরোধী জামায়াতের একাত্তরের ভূমিকা নিয়ে নিত্য সমালোচনার মুখে পড়েছে। এই বিষয়টি সম্প্রতি আবার চাঙ্গা হয়েছে নির্বাহী কমিটির সদস্য আবদুর রাজ্জাকের পদত্যাগের পর। তিনি দলের আমিরের কাছে একটি চিঠি দিয়ে জামায়াতের রাজনীতি ছেড়ে দিয়েছেন।
রাজ্জাক বিভিন্ন গণমাধ্যমে জানিয়েছেন, তিনি জামায়াতকে ৯০ দশক থেকেই নানা সময় একাত্তরের ভূমিকার জন্য ক্ষমা চাওয়ানোর চেষ্টা করে আসছিলেন। কিন্তু ব্যর্থ হয়েছেন। তিনি মনে করেন, স্বাধীনতাবিরোধী দলটির রাজনীতিতে কোনো ভবিষ্যত নেই। কারণ, স্বাধীনতাবিরোধী কোনো দল কখনো কোনো দেশে সফল হতে পারে না।
রাজ্জাকের দলত্যাগের পর শিবিরের সাবেক সভাপতি মজিবুর রহমান মঞ্জুকে বহিষ্কার করেছে জামায়াত। তিনিও দলে সংস্কারের দাবিতে সোচ্চার ছিলেন। তিনিও চাইতেন, জামায়াত একাত্তরের ভূমিকার জন্য ক্ষমা চাক।
জামায়াতে এই লেজেগুবরে অবস্থার মধ্যে বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর এসেছে যে, মকবুল আহমাদ নিজে আমিরের দায়িত্ব ছেড়ে দিয়েছেন।
বিবৃতিতে জামায়াত নেতা তাসনীম আলম বলেন, ‘দুয়েকটি সংবাদপত্র ও অনলাইন পোর্টালে মকবুল আহমাদ আমির পদে থোকতে চাচ্ছেন না, তিনি পদত্যাগ করেতে চেয়েছেন মর্মে যে সংবাদ প্রচার হয়েছে তা অসত্য, ভিত্তিহীন ও বিভ্রান্তিকর। জামায়াতের ভাবমর্যাদা ক্ষুন্ন করার হীন উদ্দেশ্যেই এ অসত্য তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। এর সঙ্গে বাস্তবতার কোন সম্পর্ক নেই। এ ধরনের তথ্য প্রকাশ করা অত্যন্ত দুঃখজনক।’
জামায়াত সম্পর্কে এমন বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রকাশ করা থেকে বিরত থাকার জন্য সংবাদপদত্র ও নিউজ পোর্টাল কর্তৃপক্ষকে আহ্বান জানান জামায়াত নেতা।