আপিলের সিদ্ধান্ত নিতে বৈঠকে খালেদার আইনজীবীরা

0
392
ফাইল ছবি

অনলাইন ডেস্ক : দুর্নীতি মামলায় বিচারিক আদালতে পাঁচ বছরের সাজার পর কারাগারে থাকা বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করার জোর প্রস্তুতি নিচ্ছেন তার আইনজীবীরা। আপিলের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে বৈঠকে বসেছেন খালেদার আইনজীবীরা।
মঙ্গলবার সকালে সুপ্রিম কোর্টের বার ভবনের কনফারেন্স রুমে আইনজীবীরা বৈঠকে বসেছেন বলে জানিয়েছেন খালেদার আইনজীবী ব্যারিস্টার এহসানুর রহমান। তিনি বলেন, আপিল করার প্রস্তুতি পুরোদমে চলছে। এজন্য সকালে জ্যেষ্ঠ আইনজীবীরা বৈঠকে বসেছেন। কখন আপিল করা হবে বৈঠকে জ্যেষ্ঠ আইনজীবীরাই সিদ্ধান্ত নেবেন।
সকালে খালেদার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া ঢাকাটাইমসকে জানান, আজ আপিল করার সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হবে। পারলে দুপুরের পর আবেদন জমা দেয়া হবে।
আজ আপিল আবেদন করতে পারলে আগামী বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে শুনানি হতে পারে বলে মনে করছেন খালেদার আইনজীবীরা।
এদিকে খালেদা জিয়ার আপিলের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে গতকাল রাতে বৈঠকে বসেছিল খালেদার আইনজীবীরা। সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এ জে মোহাম্মদ আলীর বাসায় বৈঠকটি হয়। তবে সেই বৈঠকে কী সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল তা জানা যায়নি।
এতিমখানা দুর্নীতি মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি বিচারিক আদালতে রায় ঘোষণা করা হয়। রায়ে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি প্রধান খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়। এছাড়া তারেক রহমানসহ মামলার অন্য পাঁচ আসামিকে ১০ বছর করে কারাদণ্ড এবং দুই কোটি ১০ লাখ টাকা অর্থদণ্ড করা হয়। রায় ঘোষণার পর খালেদা জিয়াকে কারাগারে নেয়া হয়।
রায়ের দিন খালেদার আইনজীবীরা ১১ ফেব্রুয়ারি আপিলের কথা জানালেও রায়ের অনুলিপি না পাওয়ায় আপিল করতে পারেননি। এরপর থেকে প্রতিদিনই রায়ের কপি পাওয়ার আশার কথা জানালেও পাননি আইনজীবীরা।
খালেদা যেন জামিন আবেদন করতে না পারেন, সে জন্যই রায়ের কপি দিতে ইচ্ছাকৃত বিলম্ব করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছিলেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। অবশেষ গতকাল বিকালে রায়ের অনুলিপি পান খালেদার আইনজীবীরা।
১১৭৪ পৃষ্ঠার রায়ের অনুলিপি আদালত থেকে বুঝে নেন খালেদা জিয়ার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া। ৬৩২ পৃষ্ঠার রায়ের অনুলিপি হয়েছে ১১৭৪ পৃষ্ঠা। এর মধ্যে ১১৬৮ পৃষ্ঠা রায়ের বিবরণ এবং ছয় পৃষ্ঠা মূল আদেশ।